শিক্ষা মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st ফেব্রুয়ারি ২০১৬

জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম)

জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম)

নায়েম রোড, ধানমন্ডি, ঢাকা-১২০৫

ভূমিকা

জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান এবং শিক্ষা প্রশাসনের  কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের দায়িতেব নিয়োজিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও এটি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (সাধারণ ও কারিগরি) শিক্ষা পেশায় নতুন যোগদানকারি কর্মকর্তাদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে। নায়েম শিক্ষা প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, শিক্ষা গবেষণা ইত্যাদি বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ কোর্সের আয়োজন করে এবং নীতিমালা প্রনয়ণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সহযোগিতা করে থাকে।

ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট

বাংলাদেশের শিক্ষা প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা, শিক্ষা পরিকল্পনা ও গবেষণার ক্ষেত্রে জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম) একটি শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান যা  এডুকেশন এক্সটেনশন সেণ্টার (ইইসি) নামে ১৯৫৯ সালে  প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশের পরিবর্তিত শিক্ষা ব্যবস্থার প্রয়োজন মেটাতে গত চার দশকে এই পতিষ্ঠানের ভূমিকার এবং কাঠামোর বেশ কয়েকবার পরিবর্তন সাধিত হয়েছে।

নায়েমের বিবর্তন শুরূ হয়েছে ১৯৫৯ সালে যখন মাধ্যমিক সত্মরের  শিক্ষকদের শিক্ষণবিঞ্জান বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য এডুকেশন এক্সটেনশন সেণ্টার (ইইসি) নামে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর  এর কর্মকান্ডকে সম্প্রসারিত করে ১৯৭৫ সালে এটিকে বাংলাদেশ এডুকেশন একনটেনশন এন্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট (বিইইআরআই) নামে রূপান্তরিত করা হয় এবং কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষক ও প্রশাসকসহ শিক্ষা ক্ষেত্রের সকল কর্মকর্তাদের গবেষণা ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণের অতিরিক্ত দায়িতব প্রদান করা হয়।

অতিরিক্ত ব্যয় হ্রাস ও কার্যকরী শিক্ষা ব্যবস্থাপনা উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে এনআইইএমআর ও বিইইআরআই কে একীভূত করে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর এডুকেশনাল এ্যাডমিনিস্ট্রেশন এক্সটেনশন এন্ড রিসার্চ (এনআইইএইআর) নামে অভিহিত করা হয়। এনআইইএইআর-কে আবারও পরিবর্তন করে ১৯৯২ সালে  জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমী (নায়েম) হিসাবে নামকরণ করা হয়। এ পরিবর্তনের লক্ষ্য ছিল শিক্ষা ক্ষেত্রের পরিকল্পনা, প্রশাসন, ব্যবস্থাপনা ও গবেষণার উন্নয়নের ক্ষেত্রে এটিকে উৎকৃষ্টমানের একটি কেন্দ্র হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা।

অবকাঠামো

অবকাঠামোগত সুবিধাসম্বলিত নায়েমের একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ কমপেস্নক্স আছে যেখানে  প্রশাসনিক ও একাডেমিক ভবন, গ্রন্থাগার, তথ্যকেন্দ্র, মিলনায়তন, শ্রেনিকক্ষ, সভা/সম্মেলনকক্ষ, ক্যাফেটেরিয়া, আবাসিক ভবন, হোস্টেল, মসজিদ ইত্যাদি রয়েছে।

নায়েমর জনবল

মহাপরিচালক নায়েমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। ৪ জন পরিচালক, ৭ জন উপপরিচালক, ১৬ জন সহকারি পরিচালক, ২৬ জন প্রশিক্ষণ বিশেষজ্ঞ, ২৮ জন টিচার ট্রেইনার, ৯ জন অন্যান্য কর্মকর্তা এবং ১১৩ জন কর্মচারি প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে পরিচালনার জন্য তাঁকে সহযোগিতা করে থাকে।

নায়েমের কার্যক্রম

নায়েম শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ প্রাথমিক পরবর্তী সত্মরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের জন্য ২৩ ধরণের প্রশিক্ষণের আয়োজন করে থাকে। নায়েমের প্রশিক্ষণ কোর্সগুলির মধ্যে (ক) বিসিএস (সাধারণ ও কারিগরি) শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের জন্য বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্স (খ) সরকারি কলেজের বিভিন্ন বিষয়ের অধ্যাপকদের জন্য সিনিয়র স্টাফ কোর্স অন এডুকেশন এন্ড ম্যানেজমেন্ট (গ) সরকারি কলেজের বিভিন্ন বিষয়ের সহযোগি অধ্যাপকদের জন্য এডভান্স কোর্স অন এডুকেশন এন্ড ম্যানেজমেন্ট (ঘ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণের জন্য শিক্ষা প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা কোর্স (ঙ) বিসিএস (সাধারণ ও কারিগরি) শিক্ষা ক্যাডারদের মধ্য থেকে বাছাইকৃত কর্মকর্তাদের জন্য রিসার্চ মেথোডোলজি কোর্স (চ)শিক্ষা পরিকল্পনা ও উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কোর্স  অন্যতম।

উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যসমূহ

নায়েমের প্রধান লক্ষ হচ্ছে প্রাথমিক পরবর্তী সত্মরে গুনগত মানসম্পন্ন শিক্ষা ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা।

সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্যসমূহ

  • শিক্ষা ব্যবস্থাপনা ও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে প্রাতিষ্ঠানিক সামর্থ্য উন্নয়নের  জন্য প্রতিষ্ঠানসমুহকে  পেশাগত ও কারিগরী সহযোগিতা প্রদান করা।
  • প্রাথমিক পরবর্তী শিক্ষা উপ-সস্তরের শিক্ষা ব্যবস্থাপনা ও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে অধিকতর দক্ষতা ও কার্যকারিতা  নিশ্চিত করা।

Share with :
Facebook Facebook