শিক্ষা মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৪ জানুয়ারি ২০১৬

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট

. প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট গঠনঃ

অর্থের অভাবে শিক্ষার সুযোগ বঞ্চিত দরিদ্র, মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষা নিশ্চিত করার নিমিত্তে দেশের সকল স্কুল/কলেজ/মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদানের জন্য একটি ‘ট্রাস্ট ফান্ড’ গঠনের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০/৪/২০১০ খ্রিস্টাব্দে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়কে একটি লিখিত নির্দেশনা প্রদান করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী প্রণীত ‘প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট আইন, ২০১১’ গত ১২/১২/২০১১ খ্রিস্টাব্দে মন্ত্রিসভার চূড়ান্ত অনুমোদন লাভ করে। ১১/০৩/২০১২ খ্রিস্টাব্দে নবম জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনে “প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট বিল, ২০১২” পাস হয়। সংবিধানের ৮০(২) অনুচ্ছেদ অনুসারে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ১৪ মার্চ, ২০১২ খ্রিস্টাব্দে উক্ত বিলে সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেন এবং ঐ তারিখেই ‘প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট আইন, ২০১২’ বাংলাদেশ গেজেটের অতিরিক্ত সংখ্যায় প্রকাশিত হয়।

ট্রাস্ট আইনের ৭(১) উপ-ধারার বিধান অনুযায়ী ০৫ (পাঁচ) সদস্য-বিশিষ্ট ট্রাস্ট এর একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারম্যান। এ আইনের ৮(১) উপ-ধারা অনুযায়ী ২৩ (তেইশ) সদস্যবিশিষ্ট একটি ‘ট্রাস্টি বোর্ড’ গঠন করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি।

. প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর দায়িত্ব কার্যাবলিঃ

ক.       ষষ্ঠ থেকে স্নাতক ও সমমান শ্রেণি পর্যন্ত দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা বেতনে শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি ও উপবৃত্তি প্রদান;

খ.        ট্রাস্টের তহবিলের জন্য অর্থ সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিনিয়োগ;

গ.        প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থী নির্বাচনের মানদন্ড নির্ধারণ;

ঘ.        উপবৃত্তির হার ও পরিমাণ নির্ধারণ;

ঙ.        ট্রাস্ট এর সকল স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণ ও হেফাজতকরণ;

  চ.       বোর্ডের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের নিমিত্ত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণসহ যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহণ;

ছ.        ট্রাস্টের অধীন গবেষণা কার্যক্রম পরিচালন;

  জ.       মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ট্রাস্ট ফান্ড সংক্রান্ত কাজে সম্পৃক্তকরণ;

ঝ.       শিক্ষা কার্যক্রমে সরকারি, বেসরকারি সংস্থা এবং সমাজের বিত্তশালীদের সম্পৃক্ত করণ;

ঞ.       শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধসহ সকল পর্যায়ে শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিতকরণ।

উপবৃত্তি বিতরণঃ

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন পাঁচটি প্রকল্পের আওতায় দেশের ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। প্রকল্পসমূহের মেয়াদ শেষে দেশের ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে স্নাতক ও সমমান পর্যায়ের সার্বিক উপবৃত্তি কার্যক্রম ট্রাস্ট এর অর্থে পরিচালিত হবে। বর্তমানে ট্রাস্ট এর অর্থে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্প চলমান রয়েছে, যার মেয়াদ জুলাই ২০১১ থেকে জুন ২০১৬ পর্যন্ত।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে ২০১২-২০১৩ অর্থবছরে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ে ১,২৯,৮১০ জন ছাত্রীকে মোট ৭২.৯৫ (বাহাত্তর কোটি পঁচানব্বই লক্ষ) কোটি টাকা উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। ৩০ জুন ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের ১৫ জন ছাত্রীকে সরাসারি উপবৃত্তি বিতরণের মাধ্যমে ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় উপবৃত্তি প্রদান কার্যক্রমে ছাত্রীদের পাশাপাশি ছাত্রদেরও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২০১৩-২০১৪ অর্থ বছরে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ে ১৪,৬৭৭ জন ছাত্র এবং ১,৪৮,৪০২ জন ছাত্রীসহ মোট ১,৬৩,০৭৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৯১,৬৫,০৩,৯৮০ (একানব্বই কোটি পঁয়ষট্টি লক্ষ তিন হাজার নয়শত আশি) টাকা উপবৃত্তি বাবদ বিতরণ করা হয়েছে। ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের ২৬ এপ্রিল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০ জন ছাত্রছাত্রীকে সরাসরি উপবৃত্তি প্রদান করেন এবং একই দিনে সারাদেশে একযোগে উপবৃত্তি বিতরণ করা হয়।

.  ‘ট্রাস্টি বোর্ডে সভাঃ

মাননীয় মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর সভাপতিত্বে গত ০২/৫/২০১৩ খ্রি: তারিখে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ট্রাস্টি বোর্ডের প্রথম সভা, ১১/০৬/২০১৪ খ্রিস্টাব্দ তারিখে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর সম্মেলন কক্ষে দ্বিতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ট্রাস্টি বোর্ড তৃতীয় সভা ১২/০১/২০১৫ তারিখে মাননীয় মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর সভাপতিত্বে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এবং চতুর্থ সভা ১২/১০/২০১৫ খ্রিস্টাব্দ তারিখে মাননীয় মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

.  ‘উপদেষ্টা পরিষদে সভাঃ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে গত ১৩/৩/২০১৩ খ্রিস্টাব্দে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ট্রাস্ট এর উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম এবং ০৫/৪/২০১৫ খ্রিস্টাব্দে ২য় সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপদেষ্টা পরিষদের ২য় সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ট্রাস্ট ফান্ড বৃদ্ধিও জন্যে অর্থমন্ত্রী, এফবিআইসিসি এর সভাপতি এবং অন্যান্যদের নির্দেশনা প্রদান করেন। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের উপবৃত্তি প্রদানের ক্ষেত্রে ২৫% ছাত্র এবং ৭৫% ছাত্রী অন্তর্ভুক্তির নির্দেশনা প্রদান করেন। উক্ত সভায় মানননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এ অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক আয়কর শিথিলের নির্দেশনা দেন। 

. জনবল নিয়োগ প্রশিক্ষণঃ

যথাযথ নিয়োগ কমিটি এবং আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এ ১ জন ১ম শ্রেণির সহকারী প্রোগ্রামার, ১ জন ২য় শ্রেণির হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, ৯ জন তৃতীয় শ্রেণির এবং ৯ জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। ট্রাস্ট এর ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণি কর্মচারিদের জন্য অফিস ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়েছে।

দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিশ্চিতকরণে আর্থিক অনুদান প্রদানঃ

২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিশ্চিতকরণে মাধ্যমিক/সমমান, উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান ও স্নাতক (পাস)/সমমান পর্যায়ে মোট ৯৯ জনকে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে ২,৪১,০০০/- (দুই লক্ষ একচল্লিশ হাজার) টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ট্রাস্ট এর ওয়েব সাইট থেকে নির্ধারিত আবেদন ফরম ডাওনলোড করে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিশ্চিতকরণে আর্থিক সহায়তা প্রাপ্তির জন্যে নীতিমালা অনুযায়ী আবেদন করতে পারবেন। ট্রাস্ট এর ওয়েবসাইটটি হলো-www.pmedutrust.gov.bd

. দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত  দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের এককালীন আর্থিক অনুদান প্রদানঃ

২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে গুরুতর আহত ০৬ জন দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীকে ৯৫০০০/- (পঁচানব্বই হাজার) টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণে গুরুতর আহত দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী এককালীন আর্থিক সহায়তা প্রাপ্তির জন্যে নীতিমালা অনযায়ী ট্রাস্ট এর ওয়েব সাইট থেকে নির্ধারিত আবেদন ফরম ডাওনলোড করে আবেদন করতে পারবেন। ট্রাস্ট এর ওয়েবসাইটটি হলো-www.pmedutrust.gov.bd

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর অন্যান্য কার্যক্রমঃ

এছাড়া নারী শিক্ষার মাধ্যমে বাল্যবিবাহ রোধ তথা নারীর ক্ষমতায়ন এর লক্ষ্যে সারা দেশে পোষ্টার ছাপিয়ে  তা জেলা-উপজেলা পর্যায়ে বিতরণ করা হয়েছে। শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে  বিভাগীয় পর্যায়ে  কর্মশালা করা  হয়েছে এবং জেলা পর্যায়ে শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধকল্পে কর্মশালা আয়োজন চলমান রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর কার্যক্রম আরো ব্যাপক  হবে। বর্তমানে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন পাঁচটি প্রকল্পের আওতায় দেশের ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। প্রকল্পসমূহের মেয়াদ শেষে দেশের ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে স্নাতক ও সমমান পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের সার্বিক উপবৃত্তি কার্যক্রম ট্রাস্টের অর্থে পরিচালিত হবে। এজন্য উপবৃত্তি কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে ট্রাস্টের স্থায়ী তহবিলের আমানত ১০০০০.০০ (দশ হাজার) কোটি টাকায় উন্নীত করা হবে। এজন্য বিভিন্ন অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান, সমাজের বিত্তবান, শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীদের ট্রাস্ট ফান্ড সংগ্রহে সম্পৃক্ত করা হবে।

২০২১ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে বাংলাদেশকে উচ্চ মধ্যম-আয়ের দেশ এবং ২০৪১ খ্রিস্টাব্দে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট শিক্ষাসহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা ও রাষ্ট্রের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ট্রাস্ট বিভিন্ন পরিকল্পনা ও কৌশল নির্ধারণ করে কর্মসূচি  গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যের জন্যে ভিজিট করুন www.pmedutrust.gov.bd

(মো: নূরুল আমিন)

ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব)

ফোনঃ ৮১৯২২০০

ই-মেইল: md_pmedutrust@yahoo.com


Share with :
Facebook Facebook